বিভিন্ন সময় দেশের বিভিন্ন আর্থিক খাত এবং সরকারের বিভিন্ন ক্ষেত্র থেকে অর্থ আত্মসাতের ঘটনা ঘটেছে এবং দেশে এখনও এ ধরনের ঘটনা চলমান রয়েছে মূলত এ ধরনের ঘটনা যারা ঘটাচ্ছে তারা অনেকেই থেকে যাচ্ছেন ধরাছোঁয়ার বাইরে অনেকেই আবার এরইমধ্যে পাড়ি দিয়েছেন দেশ ছেড়ে বিদেশ এর পথে অনেকেই বিশ্বের বিভিন্ন দেশের বাড়ি গাড়ি করে বিলাসবহুল জীবনযাপন করছে তবে বর্তমান সময়ে সরকার এই অর্থ পাচারের বিষয়টি নিয়ে গুরুত্ব সহকারে দেখছে


অর্থপাচারে সহযোগিতা ও অবৈধ সম্পদ অর্জনের মামলায় প্রশান্ত কুমার হালদারের (পিকে হালদার) বান্ধবী অবন্তিকা বড়ালকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তিন দিনের রিমান্ডে নিয়েছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

ঢাকা মহানগর সিনিয়র স্পেশাল জজ কেএম ইমরুল কায়েশ বুধবার বিকালে এ রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

এর আগে সকালে দুদকের একটি দল রাজধানীর ধানমণ্ডি এলাকা থেকে অবান্তিকাকে গ্রেফতার করে।

সাড়ে ৩ হাজার কোটি টাকা লুট করে বিদেশে পালিয়ে যাওয়া প্রশান্ত কুমার হালদারের সঙ্গে যোগসাজশে অসৎ উদ্দেশে বিভিন্ন অবৈধ ব্যবসা ও অবৈধ কর্মকাণ্ডের মাধ্যমে জ্ঞাত আয় বহির্ভূত সম্পদ অর্জন ও মানি লন্ডারিংয়ের অভিযোগ রয়েছে অবন্তিকার বিরুদ্ধে।

এর আগে অবন্তিকাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য দুদক অবন্তিকা বড়ালের রাজধানীর ধানমণ্ডির ফ্ল্যাটে একটি নোটিশ পাঠায়। ২৮ ডিসেম্বর সকাল ১০টায় তাকে হাজির হতে বলা হয়েছিল ওই নোটিশে।

তবে দুদকের চিঠি পাওয়ার পরও তিনি যথাসময়ে হাজির হননি। ব্যক্তিগত কোনো সমস্যার কারণে হাজির হতে পারেননি বা কবে হাজির হতে পারবেন- এ বিষয়েও লিখিত বা ফোনে দুদককে অবহিত করেননি তিনি। এর দুই সপ্তাহ পর অবন্তিকাকে গ্রেফতার করা হলো।

পদ-পদবি ব্যবহার করে প্রশান্ত কুমার অন্তত ৫০০০ কোটি টাকার অবৈধ সম্পদ অর্জন করেছেন। নিজে একা নন, মা, স্ত্রী, ভাইসহ পরিবারের অন্যান্য সদস্য এবং স্বজনদেরও এই দুর্নীতির সহযোগী করেছেন।

পিকে হালদারের সুখাদা লিমিটেড নামের যে প্রতিষ্ঠান রয়েছে সেখানে অবন্তিকা বড়াল, প্রীতিষ কুমার হালদার ও সুস্মিতা সাহা ও এপিকে নামে বিনিয়োগ রয়েছে।

আর্থিক খাত সহ দেশের বিভিন্ন সরকারি খাত থেকে পুকুর চুরির ঘটনা দেশে নতুন নয় এর আগে পরেও ঘটেছে এ ধরনের ঘটনা এবং এখনো চলমান রয়েছে সেটা বলাই যায়। অর্থ আত্মসাৎ এবং পাচারের অভিযোগ উঠেছিল প্রশান্ত কুমার হাওলাদার বাপিকে হাওলাদার এর বিরুদ্ধে তিনি জ্ঞাত আয় বহির্ভূত সম্পদ অর্জন করেছেন এবং মানিলন্ডারিংয়ের মত কর্মকান্ডের সাথে জড়িত রয়েছেন

News Page Below Ad