সম্প্রতি দেশের সিলেটের ঘটনাটি নিয়ে ব্যাপক আলোচনা চলছে সিলেটের পুলিশ ফাঁড়িতে পুলিশের অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনায় না ফেরার দেশে যুবক রায়হান এর চলে যাওয়ার ঘটনার পর থেকেই সেটা নিয়ে তোলপাড় শুরু হয়েছে এ ঘটনাটি সিলেটের বন্দরবাজার ফারি থানা কর্মরত এসআই আকবার এর নেতৃত্বে ঘটেছে। এরপর থেকে এসআই আকবর কে নিয়ে বিভিন্ন তথ্য উঠে আসছে গণমাধ্যমে চাঁদা আদায়ের মাধ্যমে বিপুল অর্থ সম্পদের নিদর্শন উঠে আসছে গণমাধ্যমে

সিলেটে পুলিশ ফাঁড়িতে /নি/র্যা/ত//নে রায়হান উদ্দিন (৩০) নামে এক যুবক /নি//হ/তে/র/ ঘটনায় মামলা দায়েরের পর থেকেই লাপাত্তা অভিযুক্ত এসআই আকবর হোসেন ভূঁইয়াকে ধরতে ইমিগ্রেশনে চিঠি দিয়েছে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)।

বৃহস্পতিবার (১৫ অক্টোবর) ধানমন্ডিতে অবস্থিত পিবিআইয়ের প্রধান কার্যালয়ে সংস্থাটির প্রধান ডিআইজি বনজ কুমার মজুমদার এক সংবাদ সম্মেলনে এ কথা জানান

ডিআইজি বনজ কুমার মজুমদার বলেন, সিলেটের ঘটনার ডকেট (সাক্ষ্য-প্রমাণ ও তথ্যের নথি) আমরা গত পরশুদিন রাতে পেয়েছি। ঘটনাস্থলে সিলেটের পিবিআই টিম তিন থেকে চার ঘণ্টা ছিল। আমরা আমাদের তদন্ত শুরু করে দিয়েছি। তদন্তের প্রাথমিক পর্যায়ে আমাদের মনে হয়েছে, সাময়িক বরখাস্ত হওয়া উপ-পরিদর্শক আকবরকে আমাদের দরকার।

তিনি বলেন, এ কারণে সমগ্র ইমিগ্রেশনে আমরা জানিয়ে দিয়েছি, আকবর যেন কোনোমতেই দেশ ছেড়ে পালিয়ে না যেতে পারে। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকেও সীমান্তের বিভিন্ন ইমিগ্রেশন সেন্টারে জানিয়ে দেয়া হয়েছে, আকবর যেন দেশ ছেড়ে পালিয়ে যেতে না পারে। তাকে ধরার জন্য আমরা টিম রেডি করেছি। তাকে আমাদের খুবই দরকার।

ডিআইজি বনজ কুমার মজুমদার আরো বলেন, আমাদের আইজিপি স্যার সবসময় বলেন, করোনার মধ্যে তোমরা যে সুনাম কামিয়েছ, আ/কা/ম করে এ সুনাম নষ্ট করো না। আকবর যেহেতু এই অ/প/ক/র্ম করে বাহিনীর সুনাম নষ্ট করেছে এবং সে আমাদের কথা চিন্তা করে নাই, সুতরাং তার বিষয়ে কোনো চিন্তা করার সুযোগ নেই।

’১০ হাজার টাকার কারণেই কি এমন ঘটনা ঘটেছে’-এমন প্রশ্নের তিনি বলেন, আমরা বিষয়গুলো তদন্ত করে দেখছি। একদিনেই সবকিছু বলা যাবে না। তবে আমরা একজন ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে কবর থেকে তার /ম/র/দে/হ আবার উঠাব এবং তদন্ত করব।

পুলিশি হেফাজতের থেকে যুবকের না ফেরার দেশে চলে যাওয়া নিয়ে শুরু হয়েছে সর্বত্র আলোচনা। সম্প্রতি সিলেটে এ ঘটনাটি ঘটেছে এবং এ ঘটনার পর থেকেই লাপাত্তা সেই এসআই আকবর তবে এসআই আকবর কে ধরতে ইমিগ্রেশনে চিঠি পাঠিয়েছে পিবিআই বা পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন কোনভাবেই।

News Page Below Ad