বর্তমানে বাংলাদেশের টক অব দ্য টাউন হল এমপি দুর্জয় কর্মকাণ্ড। দূর্নীতি অনিয়ম আর লুটপাটের ক্ষেত্রে অগ্রণী ভূমিকা রয়েছে এই এমপি দুর্জয়ের। ক্রিকেটাঙ্গন থেকে সরাসরি আওয়ামী লীগের অনেক বাঘা বাঘা নেতাদের পেছনে ফেলে রাজনৈতিক অঙ্গনে এসে জনপ্রতিনিধি হয়ে যান তিনি এরপর থেকেই সুকৌশলে নানানভাবে অবৈধ কর্মকাণ্ড করে সম্পদের পাহাড় গড়ে তুলেছেন তিনি শুধু তাই নয় তার স্ত্রীর নামেও রয়েছে ব্যাপক। দীর্ঘদিন থেকে চলে আসা এই সব কর্মকাণ্ড সম্প্রতি বাংলাদেশের গণমাধ্যমগুলোতে প্রকাশ পায় এরপর থেকেই একের পর এক তার বিভিন্ন কর্মকাণ্ড সামনে আসতে শুরু হয়েছে

অভিযোগের শেষ নেই মানিকগঞ্জ-১ আসনের সংসদ সদস্য নাঈমুর রহমান দুর্জয়ের বিরুদ্ধে। নিয়োগ বাণিজ্য, সরকারি বিভিন্ন প্রকল্পে দুর্নীতি, ফসলি জমির মাটি কাটা, সন্ত্রাস আর দুর্নীতির মাধ্যমে দেশে-বিদেশে সম্পদের পাহাড় গড়েছেন তিনি।

মানিকগঞ্জের শিবালয়ে আরিচা-কাজিরহাট-নগরবাড়ী নৌ রুটে ৪০টি স্পিডবোট রয়েছে। কিন্তু সংসদ সদস্যের প্রভাবে ওই ঘাটে স্পিডবোট চলছে মাত্র ৯টি।

অনুসন্ধানে জানা গেছে, দুর্জয়ের নিজের দুটিসহ ৯টি স্পিডবোটই তার সিন্ডিকেটের নিয়ন্ত্রণে চালানো হয়। অন্য বোটের মালিকরা অনেক আবেদন-নিবেদন করেও এই ঘাটে প্রতিদিন বোট চালাতে পারেন না।
কয়েকজন স্পিডবোট মালিক ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, ’এমপি ও তার সিন্ডিকেটের কারণে আমাদের এখন করুণ দশা। এ নিয়ে কথা বলারও কেউ নেই। তারা প্রতি মাসে তিন লাখ টাকার বেশি উপার্জন করলেও আমাদের তেলের খরচ ওঠানোই কষ্টকর হয়ে পড়েছে।’

স্পিডবোট কিনেও নিয়মিত ঘাটে চালাতে পারছেন না জেলা ছাত্রলীগের এক সহসভাপতিসহ যুবলীগের কয়েক নেতা। কিন্তু দুর্জয় সিন্ডিকেটের ভয়ে তারা কেউ মুখ খুলতে চাননি।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক জেলা যুবলীগের এক নেতা বলেন, ’সংগঠন করতে গিয়ে আমাদের কিছু খরচের দরকার পড়ে। তাই শেয়ারে স্পিডবোট কিনেছিলাম। কিন্তু এখন ঘাটে নিয়মিত চালাতে পারছি না। পুরো ঘাট একচেটিয়া নিয়ন্ত্রণ করছেন এমপি দুর্জয় ও তার ঘনিষ্ঠরা।’

উপজেলা যুবলীগের সাবেক এক সহসভাপতি বলেন, ’দেখুন, স্পিডবোট কী চালামু; আমাদের কোনো ট্রিপই দেওয়া হয় না। শুধু পরিবহন ট্রিপ কিছু পাই। সেই টাকা দিয়ে নিজের সংসার চলা তো দূরের কথা, তেল খরচ এবং চালকের বেতনও দিতে পারি না। আমার মতো অবস্থা অনেকেরই।’



দুর্নীতি আর অনিয়ম যেন পিছু ছাড়ছেনা বাংলাদেশের। প্রতিনিয়ত কোন না কোন জনপ্রতিনিধি কিংবা সরকারদলীয় কোন লোকেদের গোপন কর্মকান্ড প্রকাশ্যে আসছেন তারই ধারাবাহিকতায় মানিকগঞ্জের এমপি দুর্জয়ের ঘটনা প্রকাশ্যে এসেছে এবং গোটা দেশে তাকে নিয়ে চলছে ব্যাপক আলোচনা সমালোচনা। ক্ষমতা পেয়ে তার অপব্যবহার করে সম্পদের পাহাড় গড়েছেন তিনি এছাড়াও দুর্নীতি আর অনিয়মের অভিযোগ রয়েছে অজস্র তার এই সকল কর্মকান্ড দেশের গণমাধ্যমগুলোতে প্রকাশ পাওয়ার পর থেকেই নড়েচড়ে বসে সাধারণ জনতা এবং একের পর এক বিভিন্ন অনিয়মের কথা উঠে আসতে থাকে গণমাধ্যমে

News Page Below Ad