এবার বাংলাদেশের সম্প্রচার বন্ধ হয়ে যাচ্ছে জনপ্রিয় টিভি চ্যানেল এইচবিও। বলতো এই চ্যানেলটি কয়েক দশক ধরে বাংলাদেশসহ এশিয়ার বেশ কয়েকটি দেশে তাদের সম্প্রচার কার্যক্রম চালিয়ে আসছে এবং দর্শকদেরকে বিনোদিত করার চেষ্টা করছে তবে বর্তমান সময়ে এসে দেখা যাচ্ছে চ্যানেলটি তেমন ব্যবসা হচ্ছে না এই দেশগুলোতে সম্প্রচার চালু রেখে তাই এবার তারা সিদ্ধান্ত নিয়েছে বাংলাদেশসহ এশিয়ার বেশ কয়েকটি দেশ থেকে তাদের সম্প্রচার কার্যক্রম বন্ধ করার


কোটি কোটি দর্শক জনপ্রিয় চ্যানেল এইচবিও এবং ডব্লুবি (ওয়ার্নার ব্রাদার্স) মুভি চ্যানেল দক্ষিণ এশিয়ার কয়েকটি দেশে সম্প্রচার বন্ধ করে দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। শুক্রবার (১৬ অক্টোবর) চ্যানেল কর্তৃপক্ষ ওয়ার্নার মিডিয়া এ তথ্যটি জানিয়েছে।
এক দশকের বেশি সময় ধরে এই অঞ্চলে থাকলেও টেকসই ব্যবসায়িক মডেল গড়ে তুলতে না পারায় চলতি বছরের শেষ দিকে নিজেদের কার্যক্রম বন্ধ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে কোম্পানিটি এমনটাই জানিয়েছে প্রযুক্তি বিষয়ক ওয়েবসাইট টেকক্রাঞ্চ।
বাংলাদেশ-ভারতের পাশাপাশি পাকিস্তান, মালদ্বীপের দর্শকেরা চ্যানেলটি আর দেখতে পাবেন না। কোম্পানিটি জানিয়েছে, সাবস্ক্রিপশন ব্যয় মাসপ্রতি ৪ থেকে ৫ ডলারে থাকা এই দেশগুলোতে ডিসেম্বরের ১৫ তারিখ থেকে তাদের ব্যবসা বন্ধ করে দেয়া হবে।
যুক্তরাষ্ট্রের বাড়িতে বাড়িতে এইচবিও চ্যানেলটি পরিচিত নাম হলেও দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোতে খুব একটা জনপ্রিয়তা পায়নি। গত মাসে মুভিজ নাও, স্টার মুভিজ, সনি পিক্সের তুলনায় এইচবিও দেখেছেন অনেক কম মানুষ।
ওয়ার্নার মিডিয়ার দক্ষিণ এশিয়া অঞ্চলের ম্যানেজিং ডিরেক্টর সিদ্ধার্থ জৈন বিবৃতিতে বলেছেন, ২০ বছরের সফলতার পর এই সিদ্ধান্ত নেয়া আমাদের জন্য কঠিন ছিল। পে-টিভির অবস্থা নাটকীয়ভাবে বদলে গেছে। কভিড-১৯ মহামারির সময়ে আমাদের এই পরিবর্তন দরকার ছিল।


যুক্তরাষ্ট্রের ঘরে ঘরে যেখানে এইচবিও চ্যানেল টি জনপ্রিয় সেখানে এশিয়ার দেশগুলোতে এই চ্যানেলের জনপ্রিয়তা অনেকাংশে কম বাংলাদেশ-ভারত সহ আরো বেশ কয়েকটি দেশে এই চ্যানেল দেখা হয় খুব কম মূলত এইচবিও চ্যানেল টিকে সিনেমা সম্প্রচার করা হয় এবং বেশিরভাগ ক্ষেত্রে এই চ্যানেলগুলো এশিয়ান বিভিন্ন দেশে কম দেখা হয় একই ধরনের চ্যানেল যেহেতু আরো রয়েছে সেগুলোই মানুষ বেশি দেখছে বর্তমান সময়ে স্টার মুভিজ এবং অন্যান্য যেসব চ্যানেলে ধর্মের সিনেমা প্রদর্শন করে দর্শক সেখানে আটকে রয়েছে

News Page Below Ad