সমুদ্র হচ্ছে প্রকৃতির অপার সৌন্দর্যের একটি অন্যতম বড় স্থান এবং এই সমুদ্রের কাছে আসলে মানুষের মন সত্যিকার অর্থে ভালো হয়ে যায় সমুদ্রের প্রতি মানুষের ভালোবাসা টা অনাবিল তবে অনেক ক্ষেত্রে সমুদ্রে প্রাকৃতিক দৃশ্য উপভোগ করতেগিয়ে অনেক ক্ষেত্রে বিপদ ডেকে আনেন ইচ্ছাকৃতভাবেই আবার অনেকে না বুঝেই বিপদে পড়ে যান ।সমুদ্র সৈকতের পাশে পরে থাকা বালু তেমন কোন দামি বস্তু নয়। সেটাও আবার বিদেশ থেকে চুরি করে আনা হচ্ছে। এমনই এক ঘটনায় হাতেনাতে ধরা পড়েছেন ফ্রান্সের এক পর্যটক।
ইতালির সার্ডিনিয়ার সমুদ্রসৈকত থেকে ওই পর্যটক ২ কেজি বালি চুরি করেছিলেন। পরে তাকে ৮৯০ পাউন্ড জরিমানাও দিতে হয়েছে। সার্ডিনিয়া দ্বীপের সাদা ধবধবে সমুদ্রসৈকত অত্যন্ত সুরক্ষিত। এখান থেকে বালি চুরির চেষ্টা করলে পর্যটকদের থেকে মোটা টাকা জরিমানা আদায় করে স্থানীয় প্রশাসন। এছাড়া এক থেকে ছয় বছর জেলও হতে পারে।
প্রশাসনের বক্তব্য, এভাবে বালি চুরি করলে শুধু যে প্রকৃতির ক্ষতি হচ্ছে এমন নয়, সমুদ্রসৈকত সংরক্ষণের কাজও সঙ্কটে পড়ে।
বিশ্বের বহু পর্যটক প্রতিবছর সার্ডিনিয়ার নয়নশোভন সমুদ্রসৈকতে সময় কাটাতে আসেন। কিন্তু এখন সেই সৈকতগুলোর বালি ক্ষয়ে যাচ্ছে, পাশাপাশি পর্যটকদের মধ্যে বেড়ে গেছে বালি চুরির প্রবণতাও। 
এদিকে এবারই প্রথম কেউ বালি চুরি করতে গিয়ে ধরা পড়লেন তা নয়। এর আগে গত বছর এক ফরাসি দম্পতি সার্ডিনিয়ার সমুদ্রসৈকত থেকে ১৪ বোতল বালি নিয়ে যাওয়ার সময় ধরা পড়েন।
উল্লেখ্য, ২০১৭ সালে সার্ডিনিয়া প্রশাসন আইন করে সমুদ্রসৈকত থেকে বালি, নুড়িপাথর, ঝিনুক নিয়ে যাওয়া নিষিদ্ধ করেছে। এরপর থেকেই কেউ আইন ভাঙলে জেল-জরিমানার মুখে পড়তে হচ্ছে।

ইতালির একটি সমুদ্র সৈকত থেকে সৈকতে বেষ্টিত যে বালির আস্তরন থাকে সেখান থেকে বালি চুরি করতে গিয়ে ধরা পড়েছে না ফরাসি পর্যটক এবং দৃষ্টিকটু এই ঘটনাটি ঘটার পরওই ব্যক্তিকে অর্থ দন্ড দেয়া হয় এবং জরিমানা দিতে হয়েছে তাকে বেশ মোটা অংকের অর্থ মূলত এখানে নিয়মটাই এমন যে এখান থেকে ভালো চেষ্টা করলে পর্যটকদের মোটা অঙ্কের জরিমানা আদায় করে প্রশাসন

News Page Below Ad