রমজান মাস, পুরো বিশ্বের মুসলিম উম্মাহর জন্য একটি বিশেষ মাস। এই মাসটিতে আল্লাহর ইবাদাত করা সব থেকে বেশি সাওয়াবের। এবং এই মাসটিতেই হয়ে থাকে সব থেকে বেশি ইবাদাত বন্দেগী।মু’সলমানদের জন্য মাহে রমজান অফুরন্ত রহমত, বরকত, কল্যাণ ও মঙ্গল পূর্ণ মাস। জাগতিক লোভ-লালসা, হিংসা-বিদ্বেষ, প্রবৃত্তির অনুসরণ ইত্যাদি মানবিক দূর্বলতা থেকে দূরে থেকে আত্মসংশোধনের মাধ্যমে খোদায়ী গুণাবলী অর্জনের অবারিত সুযোগ এনে দেয়- রমজান। এ মাসের প্রতিটি রোজা, প্রতিটি মুহূর্ত-ই মুমিন বান্দার কাছে জীবনের চেয়েও বেশি গুরুত্বপূর্ণ।
আল্লাহ যাদের তাওফিক দান করেন তারা পবিত্র এ সময়গুলোয় সিয়ামব্রত পালনের পাশাপাশি কুরআন তেলাওয়াত, জিকির-আজকার ও মোনাজাতের মাধ্যমে খোদার সন্তুষ্টি অর্জন করেন। তওবা-ইসতিগফার ও নফল নামাজের পর খোদার কাছে কেঁদে কেঁদে জাহান্নাম থেকে মুক্তি ও জান্নাতের আবেদন করেন। যে কারণে এ মাসের প্রতিটি রোজা, প্রতিটি মুহূর্ত-ই মুমিন বান্দার কাছে জীবনের চেয়েও বেশি গুরুত্বপূর্ণ। অনেক লোভ দেখালেও একটি রোজাও ভাঙতে নারাজ মু’সলমানরা।

তেমনি একটি ভিডিও চ্যালেঞ্জে দেখা যায়, এক ইউটিউবার এক রোজাদারকে থামালেন। পানি খেয়ে রোজা ভাঙলে তাকে একটি আইফোন ১২ প্রো ম্যাক্স উপহার দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দেন। তখন ওই রোজাদার সরাসরি তার প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করেন। তিনি বলেন, রোজা ভাঙা হারাম। কোনো মু’সলমানকে এমন অনুরোধ করাও উচিত না। এরপর এক আরবিভাষী আসেন সেখানে, তাকেও একই প্রস্তাব দেওয়া হয়। কিন্তু তিনি আইফোনের বিনিময়ে রোজা ভাঙতে রাজি হয়ে যান।

কিন্তু তখন প্রথম প্রস্তাব পাওয়া ব্যক্তিটি তার কাছ থেকে বোতল কেড়ে নিয়ে মাটিতে পানি ঢেলে দেন। তখন ওই আরভিভাষী মাটি থেকে পানি লেহন করতেও রাজি হয়ে যান, যদি তাকে আইফোন দেওয়া হয়। শেষ পর্যন্ত পাশে থাকা ব্যক্তির বা’ধায় তা পেরে ওঠেননি।পরবর্তীতে রোজা রাখায় অনমনীয়তার জন্য ওই ব্যক্তিকে আইফোনটি উপহার দেওয়া হয়। আসলে এটি ছিল একটি প্রাংক ভিডিও।

ওই আরবিভাষীও যার অংশ ছিলেন। পরে ভিডিওটি সামাজিকমাধ্যমে ভাইরাল হয়ে যায়। হোয়াটস্যাপের উন্ডেড সোলে ভিডিওটি ১৫ দশমিক ৮ মিলিয়ন বার দেখা হয়েছে। আরেকটি ভিডিও চ্যানেলে এটি দেখা হয়েছে ১২ মিলিয়নের বেশি বার। ভিডিওটি নেটদুনিয়ায় ভাইরাল হয়েছে। লাখ লাখ নেটিজেন এটি শেয়ার করছেন এখনও।

এ দিকে এই ভিডিওটি এখন এক প্রকার তোলপাড় শুরু করে দিয়েছে সারা বিশ্বে। সবখানেই এখন ভিডিও নিয়ে হচ্ছে নানা ধরনের ইতিবাচক আলোচনা। বিশেষ করে আল্লহর ভয় এবং একজন প্রকৃত মুসলিমের রোযা রাখার বিষয়টি নিয়ে সবাই করছেন বেশ প্রসংশা।

News Page Below Ad