তিন মাস ধরে চাকরি নেই। সন্তানের ক্ষুধার যন্ত্রণা মেটাতে বাধ্য হয়েই সুপার শপ ’স্বপ্ন’ থেকে দুধ চুরি করেছিলেন বাবা। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তা ভাইরাল হবার পর ঘটনা নজরে আসে স্বপ্নের নির্বাহী পরিচালক সাব্বির হাসান নাসিরের। পরে তার নির্দেশেই সেই বাবা ও সন্তানের দায়িত্ব নেবার জন্য পদক্ষেপ নিয়েছে স্বপ্ন কর্তৃপক্ষ।
শনিবার (১১ মে) এই তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন স্বপ্নের হেড অফ মার্কেটিং তানিম করিম।
তানিম করিম জানান, এমন হৃদয়বিদারক একটি ঘটনার কথা জানতে পেরে আমাদের কোম্পানি সেই বাবাকে চাকরি দেয়ার নীতিগত সিদ্ধান্তের কথা জানিয়েছে। তবে এমন ঘটনা আমরা প্রায়ই মুখোমুখি হই, তাই ঘটনার সত্যতা না যাচাই করে আমরা এখনি নিশ্চয়তা দিচ্ছি না।
তিনি জানান, এই মাস চলার জন্য যা যা বাজার প্রয়োজন তা আমরা ওই বাবাকে এখনি তুলে দিবো। এটা ঠিক আমরা একটি কোম্পানি আমাদের নিয়োগের কিছু প্রক্রিয়া আছে, তাই যদি ঘটনা সত্যি হয়ে থাকে তাহলে আমাদের প্রশাসন যাবতীয় নিয়ম মেনে তাকে চাকরি দেয়ার জন্য সব পদক্ষেপ গ্রহণ করবে। তার উপযোগী যে চাকরি আমাদের কোম্পানিতে রয়েছে সেখানেই আমরা তাকে পদায়ন করবো।
তিনি আরও জানান, যে পুলিশ কর্মকর্তা এই ঘটনার সাক্ষী ছিলেন, আমরা তার কাছ থেকে নাম্বার নিয়ে তার সঙ্গে যোগাযোগ করার চেষ্টা করছি। তা পেলেই আমরা জানিয়ে দিবো।
উল্লেখ্য, গত ১০ মে রাজধানীর বাকি সড়কে কর্তব্যরত থাকা অবস্থায় ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) সহকারী কমিশনার জাহিদুল ইসলাম বাচ্চার জন্য বাবার দুধ চুরির মত হৃদয়বিদারক ঘটনার মুখোমুখি হন। এরপর তিনি তার ফেসবুক পোস্টের মাধ্যমে তা সবার কাছে তুলে ধরলে মুহূর্তেই ভাইরাল হয়ে পরে।